1. admin@dainikkhoborchitra.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০২:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নড়াইলে বিয়ের ৮মাসের মাথায় লাশ হলেন তরুণী নন্দিতা মোংলায় শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এর ৭২তম জন্ম বার্ষিকী পালিত মৃত্যু একদিনও ঘুমাতে দিল না কোটি টাকা দিয়ে তৈরি বাড়িতে,মুজিবুর রহমান কে রাজারহাট শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এর ৭২তম জন্ম বার্ষিকী পালিত- যশোর আরবপুরে করোনা রুগীর আত্মহত্যা কলারোয়ায় নতুন করে আরো ৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে মোংলায় মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল’র জন্মদিনে দোয়া মাহফিল কেশবপুরে বাল্যবিবাহ বন্ধ করলেন এ্যাসিল্যান্ড ইরুফা সুলতানা কেশবপুরে ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ জনকে জরিমানা করেছে কেশবপুরের গৌরীঘোনা ইউনিয়নে ভিজিএফ কার্ডের চাউল বিতরণ

মধু মহাতাপের বাঁশির সুর যেন হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালাকেও হার মানিয়েছে

দৈনিক খবরচিত্র ডেস্ক
  • সময় : শুক্রবার, ১১ জুন, ২০২১
  • ১২৯ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

 

নিজস্ব প্রতিনিধি

যশোর কেশবপুরে মধু মহাতাপ নামে এক মৌয়াল মানুষকে অবাক করার মত কান্ড ঘটিয়েছেন। তিনি কোন তন্ত্র-মন্ত্রের সাহায্যে নয়, নিজের বাঁশির সুরে বনের মৌমাছিকেও রপ্ত করে নিয়েছে । তার বাঁশির অদ্ভুদ সূরে চাক ছেড়ে ঝাঁকে-ঝাঁকে মৌমাছিরা তার নগ্ন শরীরে এসে যেন মৌচাকে পরিনত হচ্ছে। মধু মহাতাপের বাঁশির সুর যেন হ্যামিলনের বাঁশিওয়ালাকেও হার মানিয়ে দিয়েছে। কেশবপুর উপজেলার হাসানপুর ইউনিয়নের টিটা মোমিনপুর গ্রামে সুন্দর মনোরম পরিবেশে মৌয়াল মহাতাব মোড়লের বসবাস। তিনি ওই গ্রামের মৃত কালাচাঁদ মোড়লের ছেলে । প্রায় ২০ বছর ধরে নিজ এলাকার পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় গিয়ে মধু সংগ্রহ করাই তার পেশা।

সরেজমিন তাঁর বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, ৪২ বছর বয়সী মহাতাব মোড়ল ওরফে মহাতাব মধুর হাতে লম্বা এক বাঁসের বাঁশি। কি সুন্দর করেই না বাঁশি বাজান তিনি। বাঁশির এক অচেনা সুরের আকর্ষণে ঝাঁকে ঝাঁকে তাঁর নগ্ন শরীরে হাজার হাজার মৌমাছি এসে বসতে শুরু করে। এক সময় পরিণত হয় মৌচাকে। এই বিশেষ কার্মকান্ডের কারণে এলাকায় তিনি মহাতাব মধু নামে বেশ পরিচিতি পেয়েছেন।
বাঁশির সুরে মৌমাছি- মৌমাছি থেকে মৌচাক শরীর- এমন অদ্ভুত ও ঝুঁকিপূর্ণ ঘটনার বিষয় জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের জানান, ‘আমার বয়স যখন ১২ বছর; তখন থেকেই আমি মজার ছলে মৌ চাক থেকে মধু সংগ্রহ করতে শুরু করি। গত ২০ বছর আমি মধু সংগ্রহকে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছি। ‘প্রথমে একটি দু’টি মৌমাছি শরীরে নিতে নিতে এখন হাজার হাজার মৌমাছি আমার শরীরে বসলে কিছুই উপলব্ধি করতে পারি না। বিষয়টি আমার জন্য সহজ হয়ে গিয়েছে।’

কীভাবে তার শরীরে এতো মৌমাছি বসে তা জানাতে গিয়ে মহাতাব বলেন, ‘এর জন্য শরীরকে আগে থেকেই প্রস্তুুত করতে হয়’। তিনি প্রথমে মধু সংগ্রহের বালতি বাজালেই অল্প কিছু মৌমাছি তার শরীরে এসে বসত। এরপর তিনি বালতির পরিবর্তে থালা বাজিয়ে মৌমাছিকে তার শরীরে বসাতে শুরু করেন। এখন তিনি বালতি-থালার পরিবর্তে বাঁশি বাজান আর সেই বাশির অচেনা সুরের আকর্ষণে ঝাঁকে ঝাঁকে তাঁর নগ্ন শরীরে হাজার হাজার মৌমাছি এসে বসতে শুরু করে।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর