1. admin@dainikkhoborchitra.com : admin :
বৃহস্পতিবার, ০৫ অগাস্ট ২০২১, ০২:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নড়াইলে বিয়ের ৮মাসের মাথায় লাশ হলেন তরুণী নন্দিতা মোংলায় শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এর ৭২তম জন্ম বার্ষিকী পালিত মৃত্যু একদিনও ঘুমাতে দিল না কোটি টাকা দিয়ে তৈরি বাড়িতে,মুজিবুর রহমান কে রাজারহাট শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এর ৭২তম জন্ম বার্ষিকী পালিত- যশোর আরবপুরে করোনা রুগীর আত্মহত্যা কলারোয়ায় নতুন করে আরো ৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে মোংলায় মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল’র জন্মদিনে দোয়া মাহফিল কেশবপুরে বাল্যবিবাহ বন্ধ করলেন এ্যাসিল্যান্ড ইরুফা সুলতানা কেশবপুরে ভ্রাম্যমান আদালতে ৬ জনকে জরিমানা করেছে কেশবপুরের গৌরীঘোনা ইউনিয়নে ভিজিএফ কার্ডের চাউল বিতরণ

মনিরামপুরের অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিতদের শেষ ভরসা নাজমা খানম

দৈনিক খবরচিত্র ডেস্ক
  • সময় : রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১
  • ২৩৯ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এস এম তাজাম্মুল,মনিরামপুর থেকেঃ

“মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য।একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না”
এই গানের সাথে সাথে এমনই কিছু উধাহরন দিয়ে চলেছেন অদম্য এক জনপ্রতিনিধি।
যশোর মনিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান জনাবা নাজমা খানম। যিনি এর আগেও মনিরামপুর উপজেলা মহিলা ভাইচ চেয়ারম্যান ছিলেন।
করোনা ভাইরাসের প্রথম ধাপ থেকে শুরু এখনো পর্যন্ত অক্লান্তভাবে কাজ করে চলেছেন মনিরামপুর উপজেলার বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের জন্য।
যে মুহূর্তে মনিরামপুরবাসী তাকে স্বরন করেছেন তৎক্ষনাৎ নিজে হাতে না পারলেও সেখানে তার প্রতিনিধি পাঠিয়ে সেবার আওতায় এনেছেন। শুধু করোনার অবস্থা নই, মনিরামপুর উপজেলার দারিদ্র, দিনমজুর,সহ সকল স্তরের মানুষকে যে কোন সংকট থেকে উদ্ধার করেছেন।
সরকারি হোক বা নিজ অর্থায়নে হোক, করোনা মহামারী বা আগুনে পুড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হোক সর্বোপরি তিনিই পাশে দাড়িয়েছেন।
করোনার প্রথম ধাপে তিনি নিজের ব্যাক্তিগত সেল ফোন নাম্বার মনিরামপুরবাসীর জন্য উন্মুক্ত করে বলছিলেন-যে কোন প্রয়োজনে কল করতে। সেবা বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হবে।এবং তার বাস্তব চিত্র দেখা গেছিলো সাধারন মানুষের মাঝে।
অনেক পরিবারের মাঝে তিনি নিজে উপস্থিত থেকে সহয়াতা প্রদান করেছেন।
কিছুদিন আগেও মনিরামপুর খেদাপাড়ায় অগ্নিকাণ্ডে যে পরিরবার গুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিলো সেই মুহূর্তে সেখানেও ছুটে গেছিলেন এই মানবিক উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমা খানম।তাদের খবর নিয়ে,প্রত্যকে পরিবারের হাতে তুলে দিয়েছিলেন সাহায্য সহযোগিতা।
করোনা ভাইরাসের চলতি লকডাউনে মনিরামপুরেও দেখা দিয়েছে খেটে খাওয়া মানুষের আর্তনাথ।সরকারি বরাদ্দকৃত সহায়তার পাশাপাশি নিজস্ব ভাবেও অসহায় মানুষকে সহায়তা প্রদান করে যাচ্ছেন এই উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমা খানম। শুধু তাই নয়,যেসব বাড়িতে করোনা পজিটিভ এর জন্য লকডাউন দেওয়া হয়েছে সেসব বাড়িতে তিনি নিজে স্ব-শরীরে যেয়ে খোজ খবর সহ সহয়াতা প্রদান করছেন।
গত বছর ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত মনিরামপুরের ১৩টি পরিবারকে সরকারি আর্থিক সহায়তাও নিজে হাতে দিয়েছেন
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জনাবা নাজমা খানম। সরকার ঘোষিত পরিবারপ্রতি পাঁচ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়।
উপজেলা আনসার-ভিডিপির কর্মকর্তা ফারুক হোসেন বলেন,আমি নিজেও চেয়ারম্যানের সাথে ছিলাম ঐ নগদ অর্থ বিতরনের সময়।
সরকারি সহায়তা পেয়ে খুশি হয়ে গাঙ্গুলিয়া গ্রামের শাহদাত হোসেন ও হানুয়ার গ্রামের ফিরোজা বেগম জানান,এই টাকা দিয়ে তাঁরা ভেঙে পড়া ঘর মেরামত করেছেন।
তারা আরো বলেন,অন্যসব মেম্বর, চেয়ারম্যান তো মেরে খাই নাজমা খানম তার বিপরীত। তার জন্য আমরা আমাদের ন্যাজ্য অধিকার পেয়ে থাকি।
গতকাল(শনিবার),ভোর বেলা
খেদাপাড়া ইউনিয়নের কাশিপুর গ্রামের,বর্তমানে (তাহেরপুর) বসবাসরত মৃত আমিন উদ্দিন মাষ্টারের স্ত্রী ও মনিরামপুর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষিকা সেলিনা খাতুন ডলি’র মা সুফিয়া বেগম (৬২) করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরন করেন।
খবর শুনে শোকাবহ পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে ছুটে যান মনিরামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানম।
মনিরামপুর আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল লতিফ, সিনিয়র শিক্ষকমন্ডলী ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হকও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
বর্তমান প্রেক্ষাপট নিয়ে কথা হয় মানবতার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হিসেবে খ্যাত মনিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যান জনাবা নাজমা খানমের সাথে।
তিনি বলেন- আমার বলার কিছুই নাই।আমার কাছে ধনী, গরীব সকলে সমান।আমি সব সময় নিজেকে মনিরামপুর উপজেলা বাসীর সেবাই থাকতে চায়।কে কি করল বা বলল তাতে আমি কর্নপাত করিনা।বর্তমানে লাগামহীন ভাবে করোনা প্রকোপ আকার ধারন করেছে,আমার মনিরামপুর বাসীর কান্নাহাসির সাথী হতে চায়।আমার জনগনের যেটা হক আমি সেটা সবার জন্য আদায় করে যাবো।আমি জনগনের প্রতিনিধি, আমি যদি তাদের খবর না রাখি তাহলে আল্লাহর কাছ জবাব দিতে হবে।
মনিরামপুর বাসীর উদ্দেশ্য তিনি বলেন-করোনা ভাইরাসের জন্য সকলে সচেতনতা বৃদ্ধি করুন,সরকারি বিধিনিষেধ মেনে চলুন। কারো কোন সমস্যা হলে আমায় জানান।সেবা আপনার কাছে পৌঁছে যাবে।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর